সিনেমা

অপরাজিত নিয়ে জীবিত মহানায়কদের মাথাব্যথা নেই! দেব-জিৎ কে কটাক্ষ করার পর‌ই দেব শুভেচ্ছা বার্তা পাঠালেন অপরাজিত টিমকে

মুখে এক অন্যদিকে কাজে আরেক এই কটাক্ষে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির দিকপালদের কটাক্ষ করলেন দেবদূত। সত্যজিৎ রায়ের জীবনী অবলম্বনে তৈরি করা গল্প অপরাজিত সত্যজিৎ রায়ের সিনেমা নন্দনে জায়গা পায়নি, এই প্রসঙ্গে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির দিকপালেরা মুখে কুলুপ এঁটেছেন। প্রথম সারির তারকারাই সব সময় বাংলা ইন্ডাস্ট্রির পাশে দাঁড়ানোর কথা বলেন অথচ বাংলা ছবির পাশে তারা নিজেরাই দাঁড়ান না!

আরও পড়ুন: জন্মদিন নয় জন্মদিনের একমাস পরে মৃণাল সেনের বাড়িতে মিষ্টি হাতে যেতেন রঞ্জিত মল্লিক! বিরক্ত নয় বরং খুশী হতেন পরিচালক!

দিন কয়েক ধরে অপরাজিত ছবি নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। মিনি, কলকাতার হ্যারি, কিশমিশের মত ছবি নন্দনে ঠাঁই পেলেও ঠাঁই পাইনি অনীক দত্তের অপরাজিত! এর পেছনে অনেকেই রাজনীতির গন্ধ খুঁজে পাচ্ছেন। কারণ উপরিউক্ত তিনটি ছবির সাথে শাসকদলের নেতা-নেত্রীদের যোগ রয়েছে, অন্যদিকে অনীক দত্ত সরকারবিরোধী মিছিলেও পা বাড়িয়েছেন। নন্দনে অপরাজিত দেখানো হবেনা জেনে হতাশ হয়েছেন পরিচালক অনীক থেকে শুরু‌ করে অভিনেতা জিতু কমল‌ও। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো, অপরাজিত সাথে এহেন অন্যায় বিচার করবার জন্য সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ হলেও বাংলা চলচ্চিত্র জগতের দিকপালরা এ নিয়ে কিছুই করেননি।

অভিনেতা জিতু কমল জানিয়েছেন তিনি অসুস্থ তাই এ বিষয়ে বিশেষ কিছু বলতে পারছেন না তবে পরবর্তীতে তিনি এই বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘ করেই বলবেন। অপরদিকে ছবির পরিচালক জানিয়েছেন নন্দনে অপরাজিতর জায়গা না পাওয়ার পিছনে রাজনীতি আছে কিনা তা সঠিকভাবে না জেনে তিনি মন্তব্য করতে রাজি নন, তিনি এও জানান যে, তার ছবির দর্শকদের একটি বড় অংশ নন্দনে ছবি দেখতে আসেন, মাল্টিপ্লেক্সে অত টাকা দিয়ে তাদের পক্ষে ছবি দেখা সম্ভব নয়। কলেজে কলেজে ছবির প্রচার করতে যখন তারা গিয়েছিলেন তখন পড়ুয়ারা তাদের ছবি নিয়ে যথেষ্ট উৎসাহ দেখিয়েছিল। তবে ছবিটি নন্দনে জায়গা না পাওয়ায় যথেষ্ট হতাশ হয়েছেন পরিচালক।

আরও পড়ুন: রানী রাসমনির জগদম্বা এবার পিলুতে! মিমি দত্তকে কোন নতুন চরিত্রে দেখা যাবে পিলুতে জানেন?

এই বিতর্ক এবার নতুন করে উসকে দিলেন অভিনেতা দেবদূত ঘোষ। তিনি ইন্ডাস্ট্রির দেব জিৎ এর নাম না করেই কটাক্ষ করেছেন। অভিনেতার বক্তব্য, “অপরাজিত নন্দনে শো পেল না! জীবিত মহানায়করা সেদিন টিভিতে বাংলা ছবির ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত বলছিলেন। আরে আগে সৎ চেষ্টার (ছবির) পাশে দাঁড়ান তারপর ঘুরে দাঁড়ানো।” যদিও এতদিন চুপচাপ সবটা দেখার পর সম্প্রতি দেব একটি পোষ্ট লিখেছেন, “অপরাজিত মুক্তি পেয়েছে আপনার পাশের সিনেমা হলে। সকলে প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে সিনেমাটি দেখুন। অনেক শুভকামনা রইল।”

দেবের এই শুভেচ্ছাবার্তা টি পরিচালক অনীক দত্ত শেয়ার করে ধন্যবাদ জানিয়েছেন অভিনেতাকে। তবে এতে চিঁড়ে ভেজে নি। শুধুমাত্র একটি শুভেচ্ছাবার্তা জানানোতে খুশি হননি দেবদূত। তার বক্তব্য, কিশমিশ, রাবণ, মিনি দেখানোর জন্য অনেক হল রয়েছে। নন্দন অপরাজিত, মানিকবাবুর মেঘ, ঝিল্লি ছবিগুলোর জন্য‌ই। শুধু সত্যজিৎ রায়ের ছবি বলেই নয় অনীক দত্তের ছবি বলেও দেখানো উচিত।

Related Articles

Back to top button