গসিপ

সামনে এলো অমিতাভ বচ্চনের কালো চেহারা! বন্ধু অমিতাভকে স্যারজি না বলতে পারায় কি কাদের খানের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হয়েছিল অমিতাভের? তার জেরেই কি বলিউডে একের পর এক কাজ হারান কাদের খান?

কাদের খান, বলিউডের ইন্ডাস্ট্রির এক অতিপরিচিত তথা জনপ্রিয় মুখ। এক অসাধারণ অভিনেতার সাথে তিনি ছিলেন এক অসাধারণ সংলাপ রচয়িতাও। এত ট্যালেন্টেড হওয়া সত্ত্বেও ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে সম্পর্ক সুমধুর না থাকায় বিভিন্ন সমস্যায় পরতে হয়েছে অভিনেতাকে। একাধিক প্রজেক্ট থেকে বাদ পরতে হয়েছে কাদের খানকে। তবু মাথা নত করেননি অভিনেতা।

অমর আকবর অ্যান্টনি’, ‘দো অউর দো পাঁচ’, ‘কালিয়া’,’সত্তে পে সত্তা’, ‘কুলি’, ‘শাহেনশা’, ‘অগ্নিপথ’মত বিখ্যাত সব ছবিতে একসাথে অভিনয় করেছেন সুপারস্টার অমিতাভ বচ্চন এবং জনপ্রিয় অভিনেতা কাদের খান। আবার বহু জনপ্রিয় সিনেমার লেখক ও ছিলেন তিনি। অমিতাভের বেশ কিছু বিখ্যাত ডায়লগ ও বেরিয়েছে কাদের খানের কলম থেকে। এতসবের পরেও অভিনেতার ক্যারিয়ার বড় ধাক্কা এসেছে শুধুমাত্র স্যারজি না বলতে পারায়!

এক সাক্ষাৎকারে জনপ্রিয় অভিনেতা তথা স্ক্রিপ্ট রাইটার কাদের খান বলেন, “আমি অমিতজি’কে অমিত বলে সম্বোধন করতাম। একজন প্রযোজক আমাকে এসে বলল, আপনি স্যারজির সঙ্গে দেখা করেছেন? আমি বললাম স্যারজি কে? উনি জবাব দেন, ‘আপনি স্যারজিকে চেনেন না? ওই যে অমিতজি আসছেন’। আমি তখন জানাই- ও তো অমিত, ও আবার স্যারজি কবে থেকে হল? প্রযোজক চোখ গোলগোল করে বলল, আমরা ওঁনাকে স্যারজি বলি। এরপর দেখলাম সবাই অমিতকে স্যারজি বলছে। তবে আমার মুখ দিয়ে ওটা বার হল না। আমি ওই গ্রুপ থেকে বেরিয়ে গেলাম। কেউ কি নিজের বন্ধু বা ভাইকে স্যারজি বলতে পারে?

এ বিষয়ে অভিনেতা আরো জানান, “আসলে আমার জন্য ওই বিষয়টা অসম্ভব ছিল। তাই হয়ত ওর সঙ্গে আমার আর ওই সম্পর্কটা বজায় থাকেনি। এই জন্য খুদা গাওয়া’তে আমি ছিলাম না। গঙ্গা, যমুনা, সরস্বতী আমি অর্ধেক লিখেছিলাম, এরপর ছেড়েদি। একাধিক ছবির কাজ আমি শুরু করেছিলাম, তবে আমি সেগুলো ছেড়েদি”।

প্রসঙ্গত ২০১৯ সালের ১লা জানুয়ারি দীর্ঘ অসুস্থতার পর অভিনেতা কাদের খান শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। অভিনেতা কে শেষ বারের জন্য স্ক্রিনে দেখা গিয়েছিল ২০১৫ সালে ‘হোগায়া দিমাগ কা দহি’তে। কাদের খানের মৃত্যুর পর অমিতাভ বচ্চন টুইট করেন, “কাদের খান চলে গেলেন। খুবই দুঃখজনক খবর। দুর্দান্ত মঞ্চ অভিনেতা এবং ফিল্মি দুনিয়ার সব থেকে প্রতিভাবান অভিনেতাদের অন্যতম। আমার বহু সফল ছবির লেখকও বটেন। সঙ্গে এক জন ম্যাথমেটিশিয়ানও”।

Related Articles

Back to top button