ভাইরাল ভিডিও

‘আমি আর বাঁচতে চাই না’, জেফারের বোন ঐশ্বর্যর ফেসবুক ভিডিয়োয় নিজেকে শেষ করে দেওয়ার ইঙ্গিত! ‘বিগ জিরো’, ‘কোনও ট্যালেন্ট নেই’-এই সব শুনে শুনে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত সে

গত কয়েক মাস ধরে উত্তাল টলিপাড়া। একের পর এক আত্মহত্যার খবর এসেই চলেছে। মাসখানেক আগেই টলিপাড়ার অত্যন্ত পরিচিত মুখ অভিনেত্রী পল্লবী দের মৃত্যু নাড়িয়ে তুলেছিল গোটা টলিউড কে। এরপর আত্মহত্যা করেছেন একাধিক উঠতি মডেল। আর এবারে লাইভে এসে আত্মহত্যার ইঙ্গিত দিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেন বাংলার অত্যন্ত পরিচিত একজন ইউটিউবার। ফেসবুক এবং ইউটিউবের চ্যানেল থেকে ভিডিও শেয়ার করে ঐশ্বর্য মুখোপাধ্যায় ওরফে করিশ্মা মুখোপাধ্যায়। ক্যাপশনে লেখেন ‘এটাই আমার শেষ ভিডিও আমি আর বাঁচতে চাই না।’

ভিডিওতে রীতিমতো ঐশ্বর্য কে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায় এবং একাধিক কথার মাধ্যমে তিনি নিজের কষ্টের কথা তুলে ধরেন ভিডিওতে। উল্লেখ্য ঐশ্বর্যর দিদি জেফার এবং তার জামাইবাবু প্রীতম ও জনপ্রিয় ইউটিউবার। ভিডিওতে ঐশ্বর্য বলে তাকে সব সময় সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রোলিং এর সম্মুখীন হতে হয়েছে। বার বার কটাক্ষ করা হচ্ছে। তাকে সকলেই big 0, ট্যালেন্টহীন বলে খোঁচা মারছে বারবার। তাই এসব তিনি আর বেশিদিন সহ্য করতে পারছেন না।

ঐশ্বর্য এই ভিডিও দেখে রীতিমতো চিন্তায় পড়ে যায় সকলে। ঐশ্বর্যর দাবি ‘আমি দেড় বছর ধরে খেটে ভিডিয়ো বানাই। কোনও আর্থিক সাহায্য ছাড়াই। আমি কাউকে ছোট করে উঠিনি। আমার বারবার ফোন আসছে। আমাকে দেখে লোকে হাসছে। আমাকে ঠেস দিয়ে কথা বলছে। আমি যে বিগ জিরো সেটা কমেন্ট বক্সে সবাই ভরিয়ে দিচ্ছে। আমাকে শুনতে হচ্ছে যে, প্রীতম দা আর দিদির জন্য আমি উঠেছি। আমি আর নিতে পারছি না। আমার দোষ কী?শোনার তো একটা লিমিট আছে। আমার তো তাহলে এই পৃথিবী ছেড়ে চলে যেতে হয়। আমার দিদি তো ছোট থেকেই আমার দিদি, তাঁকে বা প্রীতমদাকে কী বলব যে না তোমরা আমার ভিডিয়োতে এসো না। কারণ তোমরা জনপ্রিয়। যতদিন কাজ করেছি, নিজের চেষ্টায় করেছি। আমার কনটেন্ট খারাপ বললে আমি মেনে নিতাম। কিন্তু ব্যক্তিগত আক্রমণ কেন?’

এ বিষয়ে ঐশ্বর্যর দিদি জেফার জানান যে এর আগে জেফার এবং প্রীতমের সঙ্গে দুজন ইউটিউবার কাজ করতো। কিছু ভুল বোঝাবুঝি এবং মনোমালিন্যর জন্য তাদের সঙ্গে আর কথা হয়না প্রীতম জেফার-এ।র কিন্তু বর্তমানে সেই দু’জন নিজেদের আলাদা ইউটিউব চ্যানেল খুলে প্রীতম এবং জেফার কে নিশানা করে রীতিমতো ট্রোল সমালোচনা করছেন। এবার তারা ঐশ্বর্য কেউ টার্গেট বানিয়েছে। যদিও ইতিমধ্যে সকলে কথামতো পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছে ঐশ্বর্য। পুলিশ প্রশাসন তাকে সব রকম ভাবে সাহায্য করবেন বলেই জানিয়েছেন।

Related Articles

Back to top button